আয়কর মুক্তসীমা অপরিবতর্তি, কমেছে করপোরেট কর

প্রস্তাবিত ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেটে করদাতাদের জন্য আয়কর মুক্তসীমা ৩ লাখ টাকা অপরিবতর্তি রাখা হয়েছে। একই সাথে করপোরেট করহার কমানো হয়েছে।;বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে বাজেট প্রস্তাব তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ;চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরে আয়কর মুক্তসীমা ৩ লাখ টাকা রাখা হয়েছিল। মানে অর্থবছরে কোনো ব্যক্তি ৩ লাখ টাকার বেশি আয় করলে তাকে কর দিতে হবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০০৯-২০১০ অর্থবছরে ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের জন্য আয়কর মুক্তসীমা ছিল ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। ক্রমান্বয়ে বাড়িয়ে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে ৩ লাখ টাকায় উন্নীত করা হয়েছিল। পরবর্তী অর্থবছরে আয়কর মুক্তসীমা বহাল রাখা হয়। নারী করদাতা, সিনিয়র করদাতা, প্রতিবন্ধী করদাতা, তৃতীয় লিঙ্গ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আয়কর মুক্তসীমা বেশি।;

অপরদিকে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তসহ অতালিকাভুক্ত কোম্পানির করপোরেট করহার কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। তালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে করহার ২০ শতাংশ করার প্রস্তাব। যেসব তালিকাভুক্ত কোম্পানির পরিশোধিত মূলধনের ১০ শতাংশের বেশি শেয়ার আইপিওর মাধ্যমে ইস্যু করা হয়। সেসব কোম্পানির করহার বাজেটে ২০ শতাংশ করা হয়। এই কর ছাড়ের সুবিধা নেওয়ার ক্ষেত্রে নগদ লেনদেনের শর্ত আরোপ করা হয়। এক্ষেত্রে সব আয় ব্যাংকের মাধ্যমে এবং ১২ লাখ টাকার উপরে ব্যয় ও বিনিয়োগ ব্যাংকের মাধ্যমে করতে হবে। যেসব তালিকাভুক্ত কোম্পানির পরিশোধিত মূলধনের ১০ শতাংশ বা তার কম শেয়ার আইপিওর মাধ্যমে ইস্যু করা হয়। সেসব কোম্পানির করহার অপরিবর্তিত বা ২২ দশমিক ৫০ শতাংশ থাকবে। তালিকাভুক্ত কোম্পানির পাশাপাশি অতালিকাভুক্ত কোম্পানির করহার ২ দমমিক ৫০ শতাংশ কমানোর প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী। এতে গতবারের ৩০ শতাংশ করহার কমিয়ে ২৭ দশমিক ৫০ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছেন। এক্ষেত্রে সব আয় ব্যাংকের মাধ্যমে এবং ১২ লাখ টাকার উপরে ব্যয় ও বিনিয়োগ ব্যাংকের মাধ্যমে করার শর্ত দেওয়া হয়। বাজেটে তালিকাভুক্ত ব্যাংক, বীমা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, মার্চেন্ট ব্যাংক, তামাকজাত পণ্য প্রস্তুতকারী কোম্পানি ও মোবাইল ফোন কোম্পানির করহার অপরিবর্তিত রাখার প্রস্তাব করা হয়।

মন্তব্য করুন






আর্কাইভ