মাশরাফির ফেরার ম্যাচে ঢাকাকে হারাল সিলেট

‘দেখবে, এই সিলেটই চমক দেখাবে’—সংবাদ সম্মেলনে সিলেট সানরাইজার্সের তারকার অভাব নিয়ে বলেছিলেন দলটির কোচ মারভিন ডিলন।

ক্যারিবীয় কোচের কথাটাই সত্যি হলো। দেশি-বিদেশি তারকায় সাজানো মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকাকে হারিয়ে বিপিএলের প্রথম চমক দেখাল সিলেট।

তিন ম্যাচে দুটিতে পরাজিত ঢাকার ছন্দে ফেরার সুযোগ ছিল আজ। কাগজে-কলমে সিলেট এবারের বিপিএলের দুর্বলতম দল। কিন্তু হলো উল্টোটা।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আজ দিনের প্রথম ম্যাচে সিলেটের আমন্ত্রণে ব্যাট করে মাত্র ১০০ রানে অলআউট হয় ঢাকা। সে রান ৩ ওভার ও ৭ উইকেট হাতে রেখে তাড়া করে সিলেট। দুই ম্যাচে সিলেটের এটিই প্রথম জয়।

মাশরাফি বিন মুর্তজার প্রত্যাবর্তনের ম্যাচ ছিল আজ। এক বছরের বেশি সময় পর প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরলেন সাবেক এই অধিনায়ক।

তবে ফেরার ম্যাচে মাত্র ১০০ রানের পুঁজি নিয়ে লড়াই করতে হয়েছে মাশরাফি ও ঢাকার অন্য বোলারদের। নতুন বলে সিলেটের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান লেন্ডন সিমন্সকে আউট সুইংয়ে ভুগিয়েছেন মাশরাফি। সিমন্স আউটও হয়েছেন মাশরাফির বলে।

দ্বিতীয় স্পেলে বোলিংয়ে এসে আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান এনামুল হককেও আউট করেন মাশরাফি। তবে এনামুলের ৪৫ বলে ৪৫ রানের ইনিংসটি সিলেটের জয় নিশ্চিত করে ফেলেছে ততক্ষণে। ৪ ওভারে ২১ রান দিয়ে ২ উইকেট পেয়েছেন মাশরাফি।
এর আগে মন্থর উইকেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় ঢাকা।

পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার আগেই মোহাম্মদ শেহজাদ (৫), তামিম ইকবাল (৩) ও জহুরুল ইসলামকে (৪) হারায় ঢাকা। তবে তামিম এলবিডব্লুর আউট নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। মোসাদ্দেক হোসেনের অফ স্পিনে সামনের পায়ে খেলতে গিয়ে এলবিডব্লু হন তিনি।

আম্পায়ারদের ভুল ছিল ইনিংসের বাকি সময়ও। সিলেটের স্পিনার নাজমুল ইসলামের বাঁহাতি স্পিনে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে এলবিডব্লু হন মোহাম্মদ নাঈম। কিন্তু রিপ্লেতে দেখা গেছে বল গ্লাভস ছুঁয়ে প্যাডে আঘাত করেছে।

নাজমুলের বলে এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়েছেন আন্দ্রে রাসেলও। এবার বল রাসেলের প্যাডে লাগার আগে ব্যাট ছুঁয়ে যায়। দুইবারই আম্পায়ার ছিলেন শরফুদ্দৌলা ইবনে সৈকত। রাসেলের আউট পর ড্রেসিংরুমের সামনে তামিমকে রিজার্ভ আম্পায়ার মুজাহিদুজ্জামানের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় করতে দেখা যায়।

নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ঢাকার ইনিংসও গতি পায়নি। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর ২৬ বলে ৩৩ রান ও শুভাগত হোমের ১৬ বলে ২১ রানের সুবাদে ঢাকার রান ১০০-তে ঠেকে।

শুভাগতকে ফিরিয়ে নিজের চতুর্থ উইকেট পেয়েছেন নাজমুল। ৪ ওভারে ১৮ রানে ৪ উইকেট তাঁর ক্যারিয়ারসেরা বোলিং ফিগার। এ ছাড়া তাসকিন পেয়েছেন ৩ উইকেট। ২ উইকেট পেয়েছেন নাজমুল।

মন্তব্য করুন



  • On, 4 মাস আগে Lisa

    MASHRAFE SHINES AMID DHAKA’S THIRD DEFEAT




আর্কাইভ